• বৃহঃ. এপ্রি ২২, ২০২১

চিলমারীতে সড়ক মেরামতের নামে দুর্নীতি

ডিসে ২০, ২০২০

চিলমারী প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের চিলমারীতে সড়ক মেরামতের নামে চলছে অনিয়ম আর দুর্নীতি। হাতের টানেই উঠে যাচ্ছে পিচ। এলাকাবাসীর বাধা। কর্তৃপক্ষ নিরব।
জানা গেছে, উপজেলার থানাহাট গাবতলা (গাবতলি) থেকে রানীগঞ্জ ইউপি অফিস পর্যন্ত ৫ কিলো ৮০০ মিটার সড়ক মেরামতের জন্য এলজিইডি এর অধিনে ৬৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কাজটি পান সিয়াম বিল্ডার্স নামে একটি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। নিয়ম নীতিকে তোয়াক্কা না করেই কর্তৃপক্ষের সামনেই অনিয়ম আর দুর্নীতির আশ্রয় নেয় ঠিকাদান প্রতিষ্ঠানটি। আর অনিয়মের মধ্য দিয়েই কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। অনিয়ম করলেও অজ্ঞাত কারনে নিরব রয়েছেন কর্তৃপক্ষ। অপরিস্কার রাস্তা পরিস্কার না করেই দ্রুত মেরামত (কার্পেটিং) করায় হাতের বা লাঠির ঘসায় উঠে যাচ্ছে পিচ। বিটুমিনের পরিমান কম হওয়ায় চাকার আঁচরেই উঠে যাচ্ছে পাথর। রবিবার সরেজমিনে দেখা গেছে, নিন্ম মানের উপকরন দিয়ে চলছে রাস্তা মেরামতের কাজ। এছাড়াও রাস্তা বালু, মাটি পরিস্কার না করেই মেরামত করায় হাত দিয়ে টান দিলেই উঠে যাচ্ছে কাপের্টিং (পিচ)। ক্ষোভ প্রকাশ করে ইউপি সদস্য বক্তার আলী জানান, কাজের মান খুবেই নিন্ম এছাড়াও কাজের সাথে সাথে উঠে যাচ্ছে পিচ। তিনি আরো জানান, নিন্মমানের কাজের ব্যাপারে আমরা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি কিন্তু তাদের পক্ষ থেকে কোন উদ্দ্যোগ নেয়া হয়নি। এলাকাবাসী জানান, একে তো বিটুমিনের পরিমান কম এছাড়াও বালু মাটি মিশ্রিত পাথর দিয়ে ক্ষমতার জোড়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন দায়িত্বরতরা। তারা জানান, হাত দিয়ে টান দিলেই পিচ উঠে যাচ্ছে। অভিযোগ আমলে না নিয়ে কর্তৃপক্ষ কাজ চালিয়ে যাওয়ায় পরে এলাকাবাসী কাজ বন্ধ করে দেন। কার্পেটিং মেরামত চললেও কাজের স্থানে এলজিইডি এর কোন দায়িত্বরত কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে দেখা মেলেনি। যে স্থান গুলোতে সমস্যা হয়েছে তা আবারো মেরামত করা হবে বলে জানান, ঠিকাদান প্রতিষ্ঠান। এব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমি সরেজমিন গিয়েছিলাম এবং একজন লোকও রেখেছি আশা করি আর সমস্যা হবে না।