• বৃহঃ. অক্টো ২৯, ২০২০

চিলমারীতে প্রনোদনা পেতে তালিকায় ভূয়া নাম অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগ

সেপ্টে ২৬, ২০২০

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি:
সুবিধা নিয়ে দুর্নীতি, অভিযোগ দেয়ায় মুখো মুখো। প্রনোদনার টাকা পেতে স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষক তালিকায় ভূয়া নাম অন্তভুক্ত করার অভিযোগ। তদন্ত কমিটি গঠন। এলাকায় আলোচনার ঝড়।
অভিযোগের পেক্ষিতে জানা যায়, করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবে স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষকগণের আর্থিক সহায়তা বিবেচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। আবেদনের পেক্ষিতে আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়। এরপরেই আর্থিক অনুদান পেতে একদল নামধারী শিক্ষক উৎকোচ দিয়ে কতিপয় দালালের মাধ্যমে নিজেদের নাম তালিকায় অন্তভুক্ত করে এবং অনুদান পেতে মরিয়া হয়ে উঠে। বিষয়টি জানতে পেরে প্রকৃত শিক্ষকরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন এবং তদন্ত পূর্বক প্রকৃত শিক্ষকদের অর্ন্তভূক্ত করার দাবি করেন।

নয়াবাড়ী স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার প্রধান তাজুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন থেকে উক্ত মাদ্রাসা আমি ও আমার সহকর্মীরা পরিচালনা করে আসতেছি কিন্তু একটি দালাল চক্র কতিপয় নামধারী শিক্ষকদের কাছে উৎকোচ নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে আতাত করে কিছু ভূয়া নাম তালিকায় অন্তভুক্ত করেছেন।

তিনি আরো বলেন, আমি তদন্ত পূর্বক প্রকৃত শিক্ষকদের নাম তালিকায় অন্তভূক্ত করার দাবি জানাচ্ছি।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ্ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি এবং বিষয়টি তদন্ত করার জন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় ২২ টি স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসার ১০৭ জন শিক্ষককের জন্য জনপ্রতি ৫হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

অপর একটি সূত্র জানান, টাকা বরাদ্দ আসার পর থেকে একটি মহল নিজেদের লাভের আশায় বিভিন্ন অনিয়মের আশ্রয় নিতে শুরু করেছে।