• বৃহঃ. অক্টো ২২, ২০২০

পেঁয়াজের দাম বেড়েছে, কমেছে ক্রেতা

সেপ্টে ১৭, ২০২০

পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও এখনো তা স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি। কয়েকদিন আগের দামের তুলনায় প্রায় দ্বিগুন। রাজধানীর বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি দরে। আর আমদানি করা পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজি ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। 

এদিকে, কয়েকদিন ধরে ক্রেতাদের পেঁয়াজ কেনার হিড়িক পড়লেও এখন তা নেই। বলতে গেলে ক্রেতা প্রায় নেই অন্যদিকে, বাজারে অস্থিরতা নিয়ন্ত্রণে চলছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। অন্যদিকে সুলভ মূল্যে টিসিবি পেঁয়াজ বিক্রি করলেও মান নিয়ে ভোক্তাদের অভিযোগ রয়েছে। 

রামপুরা ওয়াপদা রোড বাজার। এই বাজারের মুদি দোকানি মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন। জানালেন খুচরা বাজারে এখন পেঁয়াজের দাম আগের মতই আছে। খরচসহ ৯২ টাকা কেজি কিনে বিক্রি করছেন ১০০ থেকে ১০৫ টাকা কেজিতে। আর তার পাশের দোকানে কি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৯৫ টাকা কেজিতে। 

তবে দাম কিছুটা কমেছে রাজধানীর পাইকারি বাজার গুলোতে। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকা। আর ভারতীয় পেঁয়াজের মূল্য ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। বিক্রেতারা বলছেন, আমদানিকারকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মূল্যে ভারতীয় পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে। তবে তাদের পেঁয়াজ কেনার রশিদে দামের তারাতম্য স্পষ্ট।  

এসময় রাজধানীর পাইকারি বাজার গুলোতে পেঁয়াজের দর নিয়ন্ত্রণে রাখতে অভিযান পরিচালনা করতে দেখা যায় ভোক্তা অধিকারের ভাম্যমান আদালতকে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জানান, পণ্যের মানের উপর নির্ভর করে একেক জন একেক দামে পেঁয়াজ কিনেছেন। 

এদিকে স্বল্পমূল্যে গ্রাহকদের কাছে পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি। তবে মান নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে অভিযোগ ঊঠেলে সৃষ্টি হয় বিশৃঙ্খলা। টিসিবির পণ্য বিক্রেতারা বলছেন, মাসে দুটি লটারির জন্য ৬০০ কেজি পেঁয়াজ বরাদ্দ পেয়েছেন তারা। আর সেই পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ৩০ টাকা কেজি দরে।