• মঙ্গল. আগ ৩, ২০২১

চন্দনাইশে চামড়া নিয়ে বিপাকে মৌসুমী ব্যবসায়ীরা

সেপ্টে ১২, ২০২০

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় কোরবানি পশুর চামড়া নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। প্রায় দুই মাস অতিবাহিত হলে ও তারা চামড়া বিক্রি করতে পারেনি। এখন এসব ব্যবসায়ীরা চামড়া রক্ষণাবেক্ষন করতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে। লাভ লোকাসান দুরের কথা আদৌও লাভের আশায় খরিদ করা চামড়া বিক্রি করতে পারবেন কিনা তা নিয়ে সংশ্রয় দেখা দিয়েছে। মৌসুমী ব্যবসায়ীরা পুজি খাটিয়ে বিক্রি করতে না পারায় সংসার জীবনের কাজকর্ম চালাতে গিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় চন্দনাইশ উপজেলার কাঞ্চননগর বাদামতল ও হাশিমপুর বড় পাড়ায় অনেক ক্ষুদ্র ও মৌসুমী ব্যবসায়ীরা লাভের আশায় বিভিন্ন এলাকা থেকে কোরবানি পশুর চামড়া সংগ্রহ করেন। কয়েক হাজার পিস চামড়া এ উপজেলায় লবন জাতকরণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এখনো চামড়া ক্রয় করতে পাইকারি ব্যবসায়ী কিংবা ট্যানার মালিকরা এগিয়ে আসেনি। যার কারণে ক্ষুদ্র বা মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া নিপেয় দিশাহারা হয়ে পড়েছেন। আরকান মহাসড়ক সংলগ্ন হাশিমপুর বড় পাড়ার ব্যবসায়ী মনির আহমদ ,জামাল আহমদ ও আক্কাস আলী বলেন, বর্তমানে আমাদের নিকট প্রায় ৩ হাজার পিস চামড়া মওজুদ রয়েছে। ট্যানেরির পক্ষ হতে কোন লোকজন আমাদের সাথে যোগাযোগ না করায় দু:চিন্তায় পড়েছি। বিক্রির জন্য উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ২৫০ /৩ শত টাকায় কিনে জমা করেছি। এ ছাড়া চামড়া লবন জাতকরণ করতে প্রতিপিস খরচ হয়ে দেড় শত টাকা। ৫টাকার নিম্মে চামড়া বিক্রি করতে গিলে লোকসান গুণতে হবে। মনির আহমদ আরো বলেন লাভ-লোকসান দুরের কথা এখনো কেউ চামড়া ক্রয়ের জন্য ট্যানারি পক্ষের লোকজনের সাথে যোগাযোগ করতে আসেনি।