• অক্টোবর ২, ২০২২ ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ

পাইকগাছায় কাঁচা রাস্তায় হাজারো মানুষ চরম দুর্ভোগে

সেপ্টে ৭, ২০২২

পাইকগাছায় কাঁচা রাস্তায় হাজারো মানুষ চরম দুর্ভোগে

খুলনার পাইকগাছায় হরিঢালীর দেয়াড়া গ্রামের ৪ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তায় হাজারো মানুষ চলাচলে চরম দুর্ভোগে। মাটির রাস্তাটি দীর্ঘ দিনেও পাকাকরন হয়নি। সড়কটি দিয়ে শুধু দেয়াড়া নয়, চলাচল করে পাশ্ববর্তী সাতক্ষীরার তালা উপজেলার জেঠুয়া, জালালপুরসহ কয়েকটি ইউনিয়নের মানুষ। জনগুরুত্বপূর্ণ গ্রাম্য রাস্তাটি বৃষ্টি হলেই একেবারে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এমন পরিস্থিতে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বৃদ্ধ, প্রসূতি নারী, স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীসহ সর্বসাধারনের। স্থানীয়রা জানান, স্বাধীনতা পরবর্তী বিভিন্ন সময় সরকারের পট পরিবর্তন, জাতীয় ও স্থানীয় সরকার পরিষদ নির্বাচনে প্রতিবারই প্রার্থীরা রাস্তাটি নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও ভোট পরবর্তী আর খবর রাখেনি কেউ। স্থানীয়রা জানান, উপজেলার হরিঢালী ইউনিয়নের রহিমপুর গ্রামের শেষ প্রান্ত থেকে দেয়াড়া গ্রাম হয়ে তালা উপজেলার জেঠুয়া খেঁয়াঘাটে গিয়ে মিশেছে রাস্তাটি। স্থানীয়দের পাশাপাশি তাই এ রাস্তা দিয়েই চলাচল করে পাশ্ববর্তী তালা উপজেলার জেঠুয়া, জালালপুরসহ কয়েকটি ইউনিয়নের মানুষ। দীর্ঘ এ কাঁচা পথ পাড়ি দিয়ে শিক্ষার্থীরা রহিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাতায়াত করে থাকে। এমনকি সীমাহীন দুর্ভোগেও স্থানীয়রা এ রাস্তা দিয়েই বাধ্য হয়ে রহিমপুর ও কপিলমুনি বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য ও পণ্যসামগ্রী কেনাকাটা করতে যায়। উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতের জন্য এই রাস্তা দিয়েই তাদেরকে চলাচল করতে হয় বিস্তীর্ণ এলাকার সাধারণ মানুষের। দেয়াড়া গ্রামের আলিম বিশ্বাস বলেন, স্বাধীনতার ৫২ বছর পেরোলেও তাদের এলাকার উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সরকার দেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন ত্বরান্নিত রাখলেও ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি তাদের। রহিমপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম জানান, চরম ভোগান্তির মুখেও তাদের বাধ্য হয়েই এ রাস্তাটি দিয়ে চলাচল করতে হয়। আর স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কথা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, বৃষ্টি হলেই এই রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের ইউনিফর্ম ও বই-খাতা নষ্ট হয়। স্থানীয়দের কর্দমাক্ত রাস্তা দিয়ে চলাচলের দুর্ভোগের কথা জানিয়ে হরিঢালী ইউআরএসএইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার জানান, বৃষ্টি হলেই এলাকার বহু শিক্ষার্থী স্কুলেই আসতে পারে না। ইউপি চেয়ারম্যানকে বিষয়টি জানানো হলেও কোনো প্রকার পদক্ষেপ নেননি বলে দাবি তার। হরিঢালী ইউপি চেয়ারম্যান আবু জাফর সিদ্দিকি রাজু বলেন, তার ইউনিয়নের অধিকাংশ রাস্তাই ইটের সোলিং ও পিচ হয়েছে। অতি দ্রুত এ রাস্তাটিও পাকা করনে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে। উপজেলা প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, রাস্তাটি এত খারাপ তা জানা ছিল না তার। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে রাস্তাটি পাকা করনে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।