• ডিসেম্বর ১, ২০২২ ৯:১৮ পূর্বাহ্ণ

ফুলবাড়ীতে বিলুপ্ত মাদ্রাসার জমি উদ্ধার

অক্টো ১১, ২০২২

ফুলবাড়ী প্রতিনিধি:
ইসলামী শিক্ষা বিস্তারের জন্য মাদ্রসায় দান করা জমি উদ্ধার করেছেন জমির ওয়ারিশবৃন্দ। ঘটনাটি ঘটেছে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলা গোরকমন্ডল গ্রামে। এটি গোরকমন্ডল ফোরকানিয়া মাদ্রাসা নামে পরিচিত। কিন্তু বর্তমানে এ মাদ্রসায় কোন শিক্ষার্থী না থাকায় জমির পূর্ব মালিকের ওয়ারিশগণ বেহাত হওয়া এজমি উদ্ধার করেন।

জানা গেছে, উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল গোরক মন্ডল এলাকার ধর্মভীরু মুসলিম শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় শিক্ষা লাভের জন্য ১৯৭৭ সালে ওই এলাকার আবুল হোসেন, ফজর আলী ও নজর আলী মিলে ১.৩৩ একর আবাদী জমি গোরক মন্ডল ফোরকানিয়া মাদ্রাসার নামে দান করেন। তৎকালীন সময়ে মাদ্রাসাটি কিছুদিন চললেও পরবর্তীতে শিক্ষার্থী সংকটসহ নানাবিধ সমস্যায় বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ১৯৯৮ সালে স্থানীয় কয়েকজন চতুর লোক ওই স্থানে গোরক মন্ডল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা নামে নামসর্বস্ব একটি মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করে আবুল হোসেন গং এবং অন্যান্যদের দানকরা ৪ বিঘা জমি দখলে নেয়।

জমি দাতার ওয়ারিশ বয়েজ উদ্দিন কালু, খরেজ্জামাল জানান, আমাদের বাপ- চাচারা গোরক মন্ডল ফোরকানিয়া মাদ্রাসার নামে ১.৩৩ একর জমি দান করেছেন। সে মাদ্রাসা ত্রিশ বছর আগে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। সেই সুযোগে আমাদের এলাকার কিছু টাউট লোক গোরকমন্ডল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা নামে একটি নাম সর্বস্ব প্রতিষ্ঠান খুলে প্রায় ত্রিশ বছর ধরে ফোরকানিয়া মাদ্রাসার জমি গুলো অবৈধভাবে দখল করে খাচ্ছে। তারা জমি লিজ দিয়ে প্রতি বছর হাজার হাজার টাকা আয় করছে। কিন্তু মাদ্রাসার ঘরটা ছাড়া শিক্ষক শিক্ষার্থী বেঞ্চ চেয়ার টেবিল কিছুই নাই। এমনকি মাদ্রাসার নামটিও লেখা নাই ঘরের কোন জায়গায়। তাই আতœসাতকারীদের অবৈধ দখল থেকে আমরা আমাদের পুর্বপুরুষের জমি উদ্ধার করেছি।

প্রধান শিক্ষক দাবীকারী একরামুল হক আজাদ, তারাতারী মাদ্রসাটি আমরা চালু করবো। এর পূর্বে কিছু প্রাথমিক কাজ আছে সেগুলো শেষ করা হবে। তাই একটু দেরি হচ্ছে।