• শুক্র. জুলা ১, ২০২২

প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে বাড়ি পাচ্ছেন কুড়িগ্রামের ৬৩১ পরিবার

বিশেষ প্রতিবেদক:
রিলিফ নয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঈদ উপলক্ষে অনেককে উপহার দিচ্ছেন জমিসহ একটি আধুনিক চমৎকার বাড়ি। যা স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি ভূমিহীন ও গৃহহীন এসব অসহায় পরিবার। উপহার হিসাবে নিজ নামে পাচ্ছেন দুই শতক জমি এবং পাকা বাড়ি। বাড়িতে বিদ্যুৎ, স্যানিটারী ল্যাট্রিন, সুপেয় পানি, যাতায়াতের সড়কসহ নানা নাগরিক সুবিধা।
মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে ৩য় ধাপে একযোগে ৩২,৯০৪টি বাড়ি উপহার কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। অবিশ্বাস্য হলেও এটিই সত্যি। ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য একেক বাড়ি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা।
সারাদেশের ন্যায় কুড়িগ্রামেও মঙ্গলবার ভূমিহীন ও গৃহহীন ৬৩১টি পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে জমি ও বাড়ি প্রদান করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে দুই দফায় ২৬৩৯টি পরিবারের মাঝে বাড়ি হস্তান্তর করা হয়েছে।
ঈদ উপলক্ষে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উপকারভোগী পরিবারের নিকট জমিসহঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় এ কার্যক্রমের ৩য় পর্যায়ে সারা দেশের ন্যায় কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ধরলা আশ্রয়ণ পাঁচগাছিতে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।
তৃতীয় পর্যায়ে কুড়িগ্রাম জেলায় আরো ৬৩১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঈদ উপহার হিসেবে জমি ও বাড়ি বরাদ্দ দেয়া হবে। এর মধ্যে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় ৮২টি, নাগেশ^রী উপজেলায় ৮০টি, ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় ৬০টি, ফুলবাড়ি উপজেলায় ৬২টি, রাজারহাট উপজেলায় ৭০টি, উলিপুর উপজেলায় ৬৩টি, চিলমারী উপজেলায় ১১০টি, রৌমারী উপজেলায় ৪০টি ও চর রাজিবপুর উপজেলায় ৬৪টি। জেলায় মোট বরাদ্দ প্রাপ্ত গৃহের সংখ্যা ৩৮৯৮টি। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে ১৫৬৯টি, দ্বিতীয় পর্যায়ে ১০৭০টি ও তৃতীয় পর্যায়ে ১২৫৯টি। কুড়িগ্রাম জেলায় প্রথম পর্যায়ে গৃহ হস্তান্তর করা হয় ১৫৬৯টি, দ্বিতীয় পর্যায়ে ১০৭০টি এবং তৃতীয় পর্যায়ে ৬৩১টি। এর মধ্যে তৃতীয় পর্যায়ে অবশিষ্ট ৬২৮টি গৃহ নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।
এই উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মিনহাজুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস¦) উত্তম কুমার রায়, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সভাপতি রাজু মোস্তাফিজ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেক ফারুক, সাবেক সভাপতি এ্যাডভোকেট আহসান হাবীব নীলু সহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার স্থানীয় সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।
সাংবাদিক সম্মেলনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, সরকারি অর্থায়নে এসব বাড়ি নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে প্রতিটি বাড়ি নির্মাণে বরাদ্দ ছিল ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা, দ্বিতীয় পর্যায়ে ১ লক্ষ ৯১ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পর্যায়ে ২ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫শত টাকা। জেলায় মোট ভূমিহীন পরিবারের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয় ৪ হাজার ১২০টি। জেলা প্রশাসক ঘোষণা দেন চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে অবশিষ্ট ২২২টি পরিবারকে ঘর উপহার দেয়ার মধ্য দিয়ে কুড়িগ্রাম জেলাকে ভূমিহীন পরিবারমুক্ত করা হবে।