• ডিসেম্বর ১, ২০২২ ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ

কুড়িগ্রামে বিসিক শিল্প নগরীতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতি অর্ধকোটি টাকা

অক্টো ২৩, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার:
কুড়িগ্রাম বিসিক শিল্প নগরীতে একটি তুলা তৈরির কারখানায় অগ্নিকান্ড ঘটেছে। রবিবার (২৩ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বিসিকের মা টেক্সটাইল নামক তুলা তৈরির কারখানায় এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এসময় সাধারণ মানুষসহ ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য কাজ করে দীর্ঘ ২ঘন্টা পর নিয়ন্ত্রণ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় অর্ধ কোটির বেশি টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
স্থানীয় ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, জেলার সদর উপজেলার বেলগাছা ইউনিয়নে কুড়িগ্রাম বিসিক শিল্প নগরীর যৌথ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মা টেক্সটাইল নামক তুলা তৈরির কারখানায় অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। মা গার্মেন্টস ও মা টেক্সটাইল মোহসিন আলী শেখ এবং আমজাদ হোসেন সরকার নামে দুজন ব্যবসায়ীর যৌথ মালিকানায় পরিচালিত প্রতিষ্ঠান। মা টেক্সটাইল কারখানায় ঝুট কাপড় থেকে প্রসেসিংয়ের মাধ্যমে তুলা তৈরি করা হয়। পাশের মা গার্মেন্টস এর মূল ব্যবসা বন্ধ হলে সেখানে চটের বস্তা তৈরি করা হয়। অগ্নিকান্ডে মূলত: মা টেক্সটাইলের ক্ষয়ক্ষতি বেশি হয়েছে। প্রতিদিনের মতো শ্রমিকরা কাজে আসে। এসময় কারখানার মেশিনারীজ যন্ত্রাংশ আগুনের ফুলকি থেকে শুকনো তুলা ঝুট কাপড়ে অথবা বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগার ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হয়। আগুন লেগে মুহূর্তে সম্পূর্ণ কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে এবং পার্শ্ববর্তী মা গার্মেন্টস এ লেগে যায়। এরই মধ্যে স্থানীয় মানুষজন ও ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিটের সহায়তায় ২ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। ফলে ওই এলাকার অন্যান্য প্রতিষ্ঠান আগুনে পোড়ার হাত থেকে রক্ষা পায়।
কুড়িগ্রাম বিসিকের উপব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম জানান, মা টেক্সটাইল মিলটির কারখানাতে ঝুট কাপড় থেকে তুলা তৈরি করা হতো। অগ্নিকান্ডে কারখানার ১৮হাজার বর্গফিটের টিনশেড অবকাঠামো, মেশিনারীজ, কাঁচামাল ও মজুদ পণ্যসহ আনুমানিক ৫০ লক্ষ টাকার বেশি ক্ষয়ক্ষতি প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এতে মা টেক্সটাইল সংলগ্ন মা গার্মেমেন্টস’রও ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি জানান। ধারণা করা হচ্ছে তুলার মেশিন ঘোরানোর সময় ফায়ারিং হয়, বাতাসের কারণে সেখান থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে থাকতে পারে।
রংপুর বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক মো. জসিম উদ্দিন জানান, ফায়ার সার্ভিসের ৫টি প্রায় ২ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। আগুন কিভাবে লেগেছে তা তদন্ত করে বলা যাবে। এখন ডাম্পিংএর কাজ চলছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করতে ডিজি’র মাধ্যমে একটি কমিটি গঠন করা হবে। তাদের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে।