• অক্টোবর ২, ২০২২ ৯:০৬ পূর্বাহ্ণ

কুড়িগ্রামের কৃতিসন্তান ফরিদুলের অস্ট্রেলিয়া থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন!!

আগ ১৮, ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার:
অস্ট্রেলিয়ার The University of Newcastle থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন ফরিদুল ইসলাম। তার পিএইচডি টাইটেল ছিল ‘Synthesis, Structure and Application of Coal-derived Few-layer Graphene Composite Materials’
ড. ফরিদুল ইসলাম উলিপুর উপজেলার কৃষ্ণমোহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৫ম শ্রেণি এবং গুনাইগাছ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৯৯ ইং সালে এসএসসি পাস করেন। এরপর ভর্তি হন উলিপুর সরকারি কলেজে। সেখান থেকে কৃতিত্বের সঙ্গে এইচএসসি পাস করে ভর্তি হন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি এন্ড কেমিক্যাল টেকনোলজি বিভাগে। সেখান থেকে বিএসসি অনার্স এবং মাস্টার্স সম্পন্ন করে তিনি একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পনিতে জব শুরু করেন। ছোটবেলা থেকেই তিনি সবক্ষেত্রেই বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। রিসার্চ এর প্রতি বেশি আগ্রহ থাকায় এরপর তিনি বাংলাদেশের সবচেয়ে বৃহত্তম রিসার্চ অরগানাইজেশন বিসিএসআইআর (সাইন্সল্যাব) সাইন্টিফিক অফিসার হিসেবে জয়েন করেন এবং পরবর্তীতে সিনিয়র সাইন্টিফিক অফিসার হিসেবে পদন্নোতি লাভ করেন। এরপর তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য অস্ট্রেলিয়ান সরকারের স্কলারশিপ নিয়ে নিউক্যাসেল ইউনিভার্সিটিতে পড়তে যান। সেখান থেকে তিনি কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ১১ই জুলাই ২০২২ ইং তারিখে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তার পিএইচডি গবেষণার মুল বিষয় ছিল কয়লাকে ভ্যালুয়েবল প্রডাক্টস হিসাবে গড়ে তোলা যেমন ব্যাটারির মেইন উপাদান গ্রাফিন, হেভিমেটাল রেমিডিয়েশন ফ্রম ওয়েস্টওয়াটার এবং ফুড প্যাকেজিং। এ ছাড়াও রসায়ন শান্ত্রের উপর করা ড. ফরিদুল ইসলামের ছয়টি গবেষণা প্রবন্ধ বিশ্বের নামকরা কয়েকটি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।
ড. ফরিদুল উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়নের কৃষ্ণমোহন গ্রামের বদিউল আলম ও ফাতেমা বেগমের সন্তান। ব্যক্তি জীবনে দুই সন্তানের জনক। ড. ফরিদুল ইসলামের স্ত্রী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জিওগ্রাফি ও এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স নিয়ে বিএসসি অনার্স এবং মাস্টার্স করেছেন। ড. ফরিদুল আজীবন দেশের জন্য গবেষণা করে যেতে চান।তার এই অর্জনে বাবা-মা, ভাইবোন, আত্মীয় স্বজন, বন্ধু, কলিগ, শুভাকাঙ্ক্ষী ও এলাকার লোকজন সকলেই আনন্দিত। তিনি সকলের কাছে দুয়া প্রার্থী।